মন্থন সাময়িকী




মার্চ-এপ্রিল ২০০৯  

Home Page

 

রায়গড়ে SEZ–বিরোধী নির্বাচনী লড়াই                 

 

ব্যালটে-বয়কটে একই বার্তা

পস্কো প্রকল্প চাই না                               

 

সেজ নিয়ে রাজনীতি

দুই রাজ্যের তুলনামূলক আলোচনা                       

 

চুপি চুপি কর্পোরেট সেজ-শহরের দিকে 

হিন্দমোটর     

 

ভোটের সাতসতেরো                                       

 

ভোট রাজনীতির কর্পোরেটায়ন : মিডিয়ার নেতৃত্ব       

 

ভোটের মুখে জনতার গাড়ি                                 

 

চেঙ্গারায় জমি দখল এবং বাম রাজনীতি    

 

হিন্দু রাষ্ট্রে দলিত                                         

পত্রিকা পর্যালোচনা :     

আমার কথা আমিই বলব                                     

 

চিঠিপত্র :  

 বিষয় : সমস্যা সমাধানে মন্থন                               

বুলুর বারোমাস্যা 

সম্পাদকীয়

 

পরিবর্তনের হেঁয়ালি

 

`পরিবর্তন শব্দটা নিয়ে লোফালুফি খেলছে কর্পোরেট সংবাদমাধ্যমগুলো। এ যেন এক নতুন মুদ্রা, যার এক পিঠে রাখা ছিল উন্নয়ন শব্দটা, তার অন্য পিঠে বসিয়ে নেওয়া হল পরিবর্তন 

          প্রতিটি ভাষায় এক-একটা শব্দের পিছনে থাকে একটা ইতিহাস। এক-একটা শব্দের উচ্চারণে থাকে এক গভীর ব্যাঞ্জনা। আজ আমরা এমন এক সময়ের মধ্যে দিনযাপন করছি, যখন এক-একটা শব্দ থেকে শুষে নেওয়া হচ্ছে তার ব্যঞ্জনা, তার অর্থ। নির্বাচনে সরকার আর জনপ্রতিনিধি পাল্টানোর পটভূমিতে পরিবর্তন শব্দটা এখন সেই খপ্পরের মধ্যে পড়েছে। ছোটো-বড়ো যে মাপেরই হোক না কেন, পরিবর্তনকে যাচাই করে বিচার করে নেওয়ার একটা প্রশ্ন থাকে, সেটা আপাতত ঘোলাটে করে তোলাই কর্পোরেট প্রচারমাধ্যমের উদ্দেশ্য। 

          যখন আমি ভোরবেলায় বা রাতের দিকে লোকাল ট্রেনে যাতায়াত করি, দেখা হয় এমন অনেক মানুষের সঙ্গে, দশ-বারো ঘন্টা পরিশ্রম করেও যাদের সংসার ঠিকমতো চলে না। তারা পরিবর্তন শব্দটা নিয়ে এত সহজে লোফালুফি করতে পারে না। তাদের জীবনে টিকে থাকা আর এক ইঞ্চি উন্নতির জন্য অনেক রগড়াতে হয়। আলুর দাম বারো টাকা কেজি হলে, আলু কেনা কমাতে হয়। বাসে-ট্রেনে ওঠার পয়সার অভাবে পায়ে হেঁটে বা সাইকেলে মাইলের পর মাইল পার হতে হয়। অসুস্থ হলে আগের দিন রাতে এসে বাচ্চা কোলে ফ্রি ক্লিনিকে লাইন লাগাতে হয়। চাষের অবসরে একটা একশ টাকা রোজের কাজের জন্য মুর্শিদাবাদের গ্রাম থেকে মুম্বাইয়ে পাড়ি লাগাতে হয়। কারখানা বন্ধ হলে কিংবা মন্দার কবলে পড়ে চাকরিটা গেলে হন্যে হয়ে ঘুরতে হয় আর একটা রোজগারের ধান্দায়। এ জগতে পরিবর্তন আসে মগজ আর পেশীতে ঘাম ঝরিয়ে, কোন রোমান্টিক সুখস্বপ্নের ঘোড়ায় চেপে নয়।

          কিন্তু তবু তাদের অনেককেই ভোটের লাইনে শামিল হতে হবে, সযত্নে কালিটা লাগিয়ে নিতে হবে আঙুলে। কারণ তাদের যে প্রমাণ দিতে হবে --- এই মৃত্যু উপত্যকা আমার দেশ।