মন্থন সাময়িকী : মার্চ এপ্রিল ২০১৩

হোম পেজ

সম্পাদকীয়

আখতার হোসেন :

কিছু স্মৃতি, কিছু কথা



স্থিতাবস্থা বনাম উন্মত্ত ১৩ দফা,

এক নব্বই-ঊর্ধ্ব ধর্মগুরু

এবং ক্রুদ্ধ যুবকেরা



শাহবাগ আন্দোলনের রেশ 

সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে পড়বে


এখনও বিষের পেয়ালা

ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয়নি, তুমি কথা বলো


নাস্তিকরাই কেন বার বার


বাংলাদেশে জামায়াতে ইসলামির রাজনীতি


গোলাম আযমের বক্তব্য



বাংলাদেশের ব্লগারদের খোলা উঠোন


একটি শ্রমজীবী শিক্ষাভাবনা


মেমারিতে আলুচাষের অভিজ্ঞতা



চিঠিপত্র :








 

সম্পাদকীয়

আমাদের সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ 


এক সাহিত্যসভায় একজন বন্ধু সেদিন বললেন, সাপ গর্তের ভিতর থাকাই ভালো প্রসঙ্গটা ছিল বাংলাদেশের শাহবাগ আন্দোলন। কথাটা অর্থবহ এবং একটা স্পষ্ট মতও বটে।

আমাদের প্রত্যেকের মধ্যে অপরের প্রতি যে বিদ্বেষ-বিষ থাকে, তা মনের ভিতরে ঘুমিয়ে থাকাই ভালো, তাকে টানাটানি করে বাইরে নিয়ে আসা বিপদের। কিন্তু আমাদের কোনো রিপু বা প্রবৃত্তিকে কি চিরতরে মনের গহনে ঘুম পাড়িয়ে রাখা যায়? ভালোবাসা, সহযোগিতা, সহনশীলতা, বন্ধুত্ব, সহমর্মিতা ইত্যাদি বোধের পাশাপাশি ঘৃণা, প্রতিযোগিতা, অসহিষ্ণুতা, শত্রুতা, লোভ, হিংসা, স্বার্থপরতার বোধ আমাদের মধ্যে রয়েছে। আমরা কি ইচ্ছা করলেই সেগুলোর কোনোটাকে চিরতরে দমিয়ে রাখতে পারি? পারি না।

বরং আমরা সেগুলো সম্বন্ধ সজাগ থাকতে পারি, সমাজের পাঁচজনের মধ্যে মেলামেশার মাধ্যমে সেগুলোকে খোলাখুলি মোকাবিলা করতে পারি, ভালোমন্দের বিচার করে আমাদের রিপুগুলোকে কিছুটা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করতে পারি।

সাপ সারাবছর গর্তের মধ্যে কখনোই থাকতে পারে না। তাকে জীবনের তাগিদেই বাইরে আসতে হয়। তবে সাপ মানেই দংশন নয়। সাপ মানেই অকারণে মানুষের ক্ষতি করা নয়। আমাদের প্রকৃতিজগতের মধ্যে তাকে ঠিক মতো চিনতে পারলে আমরা বরং অকারণ বিপদ থেকে খানিকটা রক্ষাও পেতে পারি।

এখানেই আসে সহাবস্থানের প্রসঙ্গ। প্রকৃতিতে এক ধরনের সহাবস্থান আমরা দেখতে পাই। সমাজে সহাবস্থানের কথা ভাবতে পারলে আমাদের ভিতরকার বিদ্বেষী মনটাকে আমরা কিছুটা নিয়ন্ত্রণ করবার চেষ্টা করতে পারি। সমাজই আমাদের এই সহাবস্থানের শিক্ষা দিয়েছে।

এবারের সংখ্যায় শাহবাগ আন্দোলন এসেছে নানান বিপরীতমুখী ভাবনার সহাবস্থানের দৃষ্টিকোণ থেকে।


Comments